ভারতে অনুপ্রবেশের পর আটক বনানী থানার পরিদর্শক সোহেল রানা

620
  |  শনিবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২১ |  ৬:৩৮ অপরাহ্ণ

 


Advertisement

বাংলাদেশের বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানাকে ভারত সীমান্ত এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফের) পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার চ্যাংড়াবান্দা সীমান্ত থেকে তাঁকে আটক করে।

গ্রাহকের টাকা আত্মসাতের দায়ে অভিযুক্ত ই–কমার্স প্রতিষ্ঠান ই–অরেঞ্জের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার ব্যাপারে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার তদন্তে সম্প্রতি তাঁর নাম এসেছে।

পুলিশের গুলশান বিভাগে উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. আসাদুজ্জামান গণমাধ্যমকে জানান, সোহেল রানাকে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে এখনো আমরা আনুষ্ঠানিক ভাবে কোনো তথ্য পাই নাই।

পশ্চিমবঙ্গের ইউবিএস নামে স্থানীয় একটি গণমাধ্যমে বলা হয়, সীমান্ত টপকে ভারতে প্রবেশের অভিযোগে শুক্রবার কোচবিহার জেলার চ্যাংড়াবান্দা সীমান্ত থেকে এক বাংলাদেশি নাগরিক শেখ সোহেল রানাকে আটক করে বিএসএফ।

আটকের পর তাঁর কাছ থেকে বিদেশি পাসপোর্ট, একাধিক মোবাইল এবং এটিএম কার্ড জব্দ করা হয়েছে। শনিবার মেখলিগঞ্জ থানা-পুলিশের কাছে তাঁকে হস্তান্তর করা হতে পারে বলে জানিয়েছে বিএসএফ। আটক হওয়া সোহেল রানার পাসপোর্ট থেকে দেখা যায়, তিনি বাংলাদেশের গোপালগঞ্জের বাসিন্দা।

সোহেল রানা গ্রাহকের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎকারী বহুল আলোচিত ই–কমার্স প্রতিষ্ঠান ই–অরেঞ্জের পৃষ্ঠপোষক। বনানী থানার এই পুলিশ পরিদর্শকের বোন ও ভগ্নিপতি ই–কমার্স প্রতিষ্ঠান ‘ই–অরেঞ্জ’ পরিচালনা করতেন। মাসের পর মাস পণ্য না পাওয়ায় ই–অরেঞ্জের বিরুদ্ধে গত ১৭ আগস্ট মামলা করেন গ্রাহক মো. তাহেরুল ইসলাম। ওই সময় তাঁর সঙ্গে প্রতারণার শিকার আরও ৩৭ জন উপস্থিত ছিলেন। গ্রাহকের ১ হাজার ১০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ওই মামলা হয়।

ইউআর/

Advertisement