হত্যার পর জামাল খাশোগির মরদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে

253
  |  শনিবার, জুলাই ৪, ২০২০ |  ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ

সৌদি আরবের সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যা মামলায় তুরস্কে ২০ জন সৌদি নাগরিকের বিচার তাদের অনুপস্থিতিতে শুরু হয়েছে।শুক্রবার তুরস্কের আদালতে এই বিচারকার্য শুরু হয়।এদিন সাক্ষ্য দেয়ার সময় জেকি ডেমির নামে সৌদি দূতাবাসের এক কর্মী জানান,সাংবাদিক জামাল খাশোগির প্রবেশের পর এক ঘণ্টার কম সময়ের মধ্যেই তাকে ডেকে এনে ওভেন জ্বালাতে বলা হয়।তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে টেকনিশিয়ান হিসেবে কাজ করা জেকি ডেমির বলেন,সেখানে পাঁচ থেকে ছয়জন লোক ছিলেন যারা আমাকে তান্দুরি ওভেন জ্বালানোর নির্দেশ দেন।

২০১৮ সালের অক্টোবরে তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে প্রবেশের পর আরে ফিরে আসেননি সাংবাদিক জামাল খাশোগি।খাশোগি সৌদি যুবরাজের কঠোর সমালোচক ছিলেন। এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে সৌদি সরকারও আলাদা একটি বিচারকার্য পরিচালনা করছে। তবে অসম্পূর্ণ হওয়ায় এর অনেক সমালোচনা হয়েছে।ইস্তাম্বুলে মামলায় তুর্কি কৌঁসুলিরা অভিযোগ করেছেন,সৌদি গোয়েন্দা বিভাগের উপপ্রধান এবং রাজদরবারের গণমাধ্যম বিষয়ক উপদেষ্টা সৌদ আল কাহতানি খাশোগি হত্যার পরিকল্পনায় নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং একটি সৌদি খুনি দলকে নির্দেশনা দিয়েছেন।বাকিদের বিরুদ্ধে খাশোগিকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।খাশোগির মরদেহ এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি।ধারণা করা হচ্ছে, খাশোগির মরদেহ টুকরো টুকরো করে কেটে ওই ওভেনের মধ্যেই পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

Advertisement