পিয়াজ আমদানি হয়েছে গড়ে ৩৮ টাকা বিক্রি হচ্ছে ২২০ টাকা

1811
  |  মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৬, ২০১৯ |  ১২:০৭ অপরাহ্ণ

সোমবার প্রতি কেজি দেশি পিয়াজ কারওয়ান বাজারে বিক্রি হয়েছে ২০০ থেকে ২২০ টাকায়। বিদেশি পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৮০ থেকে ২০০ টাকায়। একদিন আগেও দেশি ১৮০ টাকায় আর বিদেশি পিয়াজ বিক্রি হয় ১৬০ টাকা কেজি দরে।

ভারত, মিয়ানমার, চীনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা পিয়াজ এখনও বিক্রি হচ্ছে ১৮০ থেকে ২০০ টাকায়। অথচ এই পিয়াজই বিদেশ থেকে আমদানি হয়েছে গড়ে মাত্র ৩৮ টাকায়!

Advertisement

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের তথ্যমতে, গত আগস্ট থেকে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত সাড়ে তিন মাসের বেশি সময়ে ১ হাজার টনের বেশি পিয়াজ আমদানি করেছে ৪৭ আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান।

তারা প্রায় ৪০০ কোটি টাকা খরচে ১ লাখ ৪ হাজার ৫৫৮ টন, অর্থাৎ ১০ কোটি ৪৫ লাখ ৫৮ হাজার কেজি পিয়াজ আমদানি হয়েছে। অর্থাৎ প্রতি কেজি পিয়াজ আমদানিতে তাদের খরচ হয়েছে গড়ে ৩৮ টাকা ২৬ পয়সা।

এদিকে, পিয়াজের মূল্য কারসাজির সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করতে ৪৭ আমদানিকারককে তলব করেছে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর। তাদের ১৩ জন গতকাল কাকরাইলের শুল্ক গোয়েন্দা অফিসে হাজির হন। রবিবার রাত থেকে বেড়ে গেছে সব ধরনের পিয়াজের দাম। ফলে নাগালের বাইরে এ পিয়াজ।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, মিসর থেকে জাহাজে আমদানি করা পিয়াজ আগামী ৭ থেকে ৮ দিনের মধ্যে দেশের বিভিন্ন বাজারে আসবে। এ পিয়াজ খুচরা বাজারে সর্বোচ্চ ৬০ টাকায় বিক্রি হবে। এছাড়া ডিসেম্বরের প্রথমেই বাজারে দেশি নতুন পিয়াজ আসতে শুরু করবে। সব মিলিয়ে আগামী ৮ থেকে ১০ দিনের মধ্যে পিয়াজের বাজার স্বাভাবিক হবে।

Advertisement