সংসদে গিয়েও বদলায়নি স্বভাব!

2323
  |  মঙ্গলবার, মে ২৮, ২০১৯ |  ১২:৩২ অপরাহ্ণ

তারকা মানেই তাঁকে দেখে চারদিকে আলোকচিত্রীদের ক্যামেরার ফ্ল্যাশ জ্বলে উঠবে। কিংবা তিনি নিজেই সেলফি তুলবেন। আর তা পোস্ট করবেন ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম কিংবা টুইটারে। কিন্তু রাজনীতি আলাদা ব্যাপার। এখানে রাজনীতিকদের মেজাজ অন্যরকম। আর সংসদ মানে দেশের সর্বোচ্চ প্রতিষ্ঠান। সারা দেশ থেকে যারা সাংসদ নির্বাচিত হয়ে আসেন, তাঁদের ওপর অর্পিত হয় গুরুদায়িত্ব। কিন্তু এবার সেই সংসদ ভবনে পা রেখে নিজেদের তারকা ইমেজ থেকে বের হতে পারেননি ভারতের বাংলা ছবির দুই জনপ্রিয় নায়িকা মিমি চক্রবর্তী আর নুসরাত জাহান। তাঁরা দুজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু। তাঁরা এখন নির্বাচিত সাংসদ। অভিনয় থেকে এবার রাজনীতির ময়দানে তাঁদের অভিষেক হয়েছে। কিন্তু এখনো নিজেদের মধ্য রয়ে গেছে সেই তারকা ইমেজ। তাই তো গতকাল সোমবার দুপুরে দিল্লিতে সংসদ ভবনে গিয়ে দুজনই ছবি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

সংসদ ভবনের সামনে তোলা ছবি টুইটারে দিয়েছেন মিমি চক্রবর্তী আর নুসরাত জাহান। ছবির সঙ্গে নুসরাত জাহান লিখেছেন, ‘নতুন শুরু। আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের সব মানুষকে আমার ওপর বিশ্বাস রাখার জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’ আর মিমি চক্রবর্তী লিখেছেন, ‘স্বপ্নের কথা মনে রাখো এবং তার জন্য লড়াই করো।’

Advertisement

জানা গেছে, গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় দিল্লিতে সংসদে ভবনে যান মিমি চক্রবর্তী আর নুসরাত জাহান। প্রথমেই তাঁরা যান সংসদ ভবনের ৬২ নম্বর কক্ষে। সেখানে নতুন সাংসদদের নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর, দিল্লির অস্থায়ী ঠিকানাসহ কিছু প্রাথমিক তথ্য দিতে হয়।

এবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানে রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন নুসরাত জাহান ও মিমি চক্রবর্তী। ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট থেকে তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে জয়ী হয়েছেন নুসরাত জাহান আর যাদবপুর কেন্দ্র থেকে মিমি চক্রবর্তী। লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর দিল্লি যাওয়ার আগে আজমির শরিফে যান নুসরাত। সেখানে তিনি খাজা মইনউদ্দিন চিশতি (র.)-এর মাজার জিয়ারত করেন। সেই ছবিও তিনি শেয়ার করেছেন ইনস্টাগ্রামে।

এরই মধ্যে দিল্লিতে সংসদ ভাবনের কাজ শেষ করে গতকাল সন্ধ্যায় কলকাতায় ফিরেছেন মিমি চক্রবর্তী। আর নুসরাত জাহান দিল্লিতেই আছেন। তিনি কলকাতা ফিরবেন আগামীকাল বুধবার।

Advertisement