রাজশাহীতে ১১ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

0

election(24)1450018854ন্যাশনাল ডেস্ক :: মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন রোববার রাজশাহীর ১৩টি পৌরসভায় ১১ জন মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

এ ছাড়া ২৫ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ২ জন সংরক্ষিত কাউন্সিলর তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। রাজশাহীর বিভিন্ন উপজেলার নির্বাচন অফিস সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পবা উপজেলার কাটাখালি পৌরসভায় চার মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এই চারজনের মধ্যে তিনজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী। এরা হলেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী তিন মেয়র প্রার্থী মোতাহার হোসেন, আবু শ্যামা ও জহুরুল ইসলাম মঞ্জুর রহমান। তিন বিদ্রোহী প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের কারণে এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হলেন আব্বাস আলী।

অপরদিকে এ পৌরসভায় আর যেসব প্রার্থী লড়াইয়ে রয়েছেন তারা হলেন বর্তমান মেয়র ও জামায়াত নেতা মাজেদুর রহমান, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মাসুদ রানা, বিদ্রোহী সিরাজুল হক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুর রহমান ডলার।

তানোর মুন্ডুমালা পৌরসভার আওয়ামী লীগের দুই বিদ্রোহী ও বিএনপির এক বিদ্রোহী প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আহসানুল হক স্বপন ও অধ্যাপক লুৎফর রহমান এবং বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মুন্ডুমালা পৌর বিএনপির সহসভাপতি মোজাম্মেল হক।

এ পৌরসভার দুই বিদ্রোহী প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের কারণে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হলেন তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রব্বানী।

অপরদিকে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের কারণে বিএনপির একক প্রার্থী হলেন মুন্ডুমালা পৌর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ কবির।

এ পৌরসভায় মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে আরো রয়েছেন জামায়াতের প্রার্থী আনিসুর রহমান ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী আহমদ হোসাইন সিজার।

এদিকে পুঠিয়া পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী হাসিবুল ইসলাম ম-ল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন।

বর্তমানে পুঠিয়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রবিউল ইসলাম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জিএম হীরা বাচ্চু, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আসাদুল হক আসাদ, জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী এনামুল হক ও ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী রুহুল আমীন।

অন্যদিকে বাগমারার ভবানীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে জাতীয় পার্টির (জাপা) মেয়র প্রার্থী আবু তালেব মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। ফলে এই পৌরসভায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির একজন করে প্রার্থী থাকলেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগের পৌরসভার সভাপতি আবদুল মালেক এবং বিএনপির পৌরসভা শাখার সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক।

এ ছাড়া চারঘাট পৌরসভায় জামায়াত নেতা সাইফুল ইসলাম মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি উভয় দলের বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী রয়েছেন। এরা হলেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র নার্গিস খাতুন, বিদ্রোহী প্রার্থী রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের সহসসভাপতি গোলাম কিবরিয়া, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জাকিরুল ইসলাম, বিদ্রোহী প্রার্থী পৌর বিএনপির সভাপতি কায়েম উদ্দিন।

এ ছাড়া এ পৌরসভায় স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে লড়ছেন আনিসুর রহমান ও সাব্বির হোসেন।

এদিকে গোদাগাড়ী পৌরসভায় বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া রুলু মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। ফলে এখানে বিএনপির প্রার্থী হলেন আনোয়ারুল ইসলাম। এ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মনিরুল ইসলাম বাবু। এ ছাড়া নির্বাচনে লড়ছেন জামায়াত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আমিনুল ইসলাম এবং জাতীয় পার্টি প্রার্থী গোলাপ হোসেন।

রাজশাহী জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম জানান, রাজশাহীর ১৩ পৌরসভায় মোট ১১ জন মেয়র প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

এ ছাড়া কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে গোদাগাড়ী পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩ জন, কাঁকনহাটে সাধারণ কাউন্সিলর পদে একজন, তানোরে সাধারণ কাউন্সিলর পদে একজন, নওহাটায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে একজন, কেশরহাটে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪ জন, ভবানীগঞ্জে সাধারণ কাউন্সিলর পদে দুই ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১ জন, দুর্গাপুরে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১ জন, পুঠিয়ায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে একজন, আড়ানী পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

Share.

Leave A Reply