ওসির হাতে লাঞ্ছনার শিকার সেই এএসআইকে ডিএসবিতে পদায়ন

1629
  |  মঙ্গলবার, আগস্ট ১১, ২০২০ |  ৬:২৩ অপরাহ্ণ

পুলিশের গুলিতে নিহত মেজর (অব.) সিনহার সহযোগী সিফাতের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে লাঠিপেটা ও এক এএসআইকে থাপ্পড় মারার ঘটনায় বরগুনার বামনা থানার ওসি ইলিয়াস আলী তালুকদারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।মঙ্গলবার প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মফিজুল ইসলাম।জানা যায়, এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মফিজুল ইসলামকে প্রধান করে ৩ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্যরা রোববার ঘটনাস্থল বামনা পরিদর্শন করে সোমবার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার পরই ওসিকে প্রত্যাহার করা হয়।কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের মৃত্যুর পর গ্রেপ্তার ও কারাবন্দি হন স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের ছাত্র শাহেদুল ইসলাম সিফাত।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সিফাতের মুক্তির দাবিতে শনিবার দুপুর ১২টায় সিফাতের জন্মস্থান বরগুনার বামনায় মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু করেন তার সহপাঠীরা। মানববন্ধনে হঠাৎ ওই ওসির নেতৃত্বে পুলিশ এসে ব্যানার ফেস্টুন ছিনিয়ে নেয়। এরপর লাঠিচার্জ শুরু করলে মানববন্ধন পণ্ড হয়ে যায়। এতে অন্তত ১০ জন আহত হন।মানববন্ধনকারীদের অভিযোগ ছিল, তারা শান্তিপূর্ণভাবে মানববন্ধন করছিলেন। হঠাৎ সেখানে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হাজির হন বামনা থানার ওসি মো. ইলিয়াস আলী তালুকদার। পুলিশ প্রথমেই মানববন্ধনের ব্যানার ও মাইক ছিনিয়ে নেয়। এরপরও সিফাতের বন্ধুরা মানববন্ধন চালিয়ে গেলে ওসি দৌড়ে এসে নিজেই লাঠিপেটা শুরু করেন। একই সঙ্গে তিনি মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীদের দুষ্কৃতকারী বলে উল্লেখ করেন।এসময় এএসআই নজরুল ইসলাম পেটাতে না চাইলে তাকে থাপ্পড় মারেন ওসি। নজরুল ইসলামকে সোমবার প্রত্যাহার করে বরগুনা পুলিশ লাইনসে নেয়া হয়।

Advertisement