তারেক রহমানের নির্দেশেই শপথ নিয়েছি: হারুন

1546
  |  সোমবার, এপ্রিল ২৯, ২০১৯ |  ১১:১৫ অপরাহ্ণ

দলীয় সিদ্ধান্তেই শপথ নিয়েছি বলে দাবি করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপির ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচিত সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ।তিনি বলেন,আমরা সবাই দলের সিদ্ধান্তেই শপথ নিয়েছি।দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আমরা সংসদে যাচ্ছি।সোমবার শপথ নেয়ার পর স্পিকারের কক্ষ থেকে বের হয়ে হারুন এসব কথা বলেন।তিনি বলেন,আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশেই শপথ নিয়েছি। আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ দেশের মানুষের কথা বলতে আমরা সংসদে যাচ্ছি।

দলীয় সিদ্ধান্ত হলে মহাসচিব ফখরুল শপথ নিলেন না কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে হারুন বলেন, মহাসচিবের বিষয়টা আমি অবহিত নই। সেটা উনার ব্যাপার, আপনারা উনার সঙ্গে কথা বলেন।এমপি জাহিদের মতো বহিষ্কার হওয়ার কোনো সম্ভাবনা আছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা দলীয় সিদ্ধান্তে শপথ নিয়েছি, দল কীভাবে বহিষ্কার করবে?তাহলে জাহিদকে কেন বহিষ্কার করা হলো? প্রশ্নে তিনি বলেন, জাহিদ সিদ্ধান্ত হওয়ার আগেই শপথ নিয়েছিলেন। তবে উনি ইতিমধ্যে দলের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। এখন দল সেটা বিবেচনা করবে।

Advertisement

শপথ নিতে বিভিন্ন চাপ ছিল উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, সাদা পোশাকে আমাদের কাউকে কাউকে বিভিন্নভাবে চাপে রেখেছিল, বাংলাদেশে যে আতঙ্কের পরিস্থিতি বিরাজ করছে, যেভাবে গুম, খুন, অপহরণের আতঙ্ক আছে, কেউ কেউ সেই আতঙ্কের শিকার হয়েছে।এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংসদে গিয়ে জাতীয় সংলাপের আয়োজন করে পুনর্নির্বাচনের দাবি আমরা জানাব।সংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিয়ে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাতে যান হারুনসহ ওই চারজন।

এর আগে বিকালে বিএনপি থেকে নির্বাচিত চার সংসদ সদস্যকে শপথ বাক্য পাঠ করান জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকার ড.শিরীন শারমিন চৌধুরী।ফলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া সবাই সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন।এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংসদের হুইপ ইকবালুর রহীম। বিএনপি নেতা হারুনের সঙ্গে তার স্ত্রী সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়াও ছিলেন।শপথের আগে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করেন তারা।শপথ নেয়া চারজন হলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের মো. আমিনুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের মো. হারুনুর রশীদ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া এবং বগুড়া-৪ আসনের মোশাররফ হোসেন।

সংবিধান অনুযায়ী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী বিএনপির বাকি পাঁচ সদস্যের শপথ নেয়ার শেষ দিন ছিল আজ।যদি আজকের মধ্যে তারা শপথ না নিতেন তাহলে পরবর্তী করণীয় ঠিক করতেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আটটি আসনে জয়লাভ করে। এর মধ্যে ছয়জন বিএনপির; বাকি দুজন ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরামের। নির্বাচনের পরপরই ভোটে ব্যাপক অনিয়ম এবং কারচুপির অভিযোগ তুলে তা প্রত্যাখ্যান করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানানোর পাশাপাশি তারা শপথ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

তবে এ সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে গণফোরামের দুই সংসদ সদস্যের মধ্যে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচিত সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহম্মেদ গত ৭ মার্চ শপথ নিয়ে সংসদে যোগ দেন। তাকে অনুসরণ করে গণফোরামের প্রতীক উদীয়মান সূর্য নিয়ে সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচিত দলটির আরেক নেতা মোকাব্বির খান গত ২ এপ্রিল শপথ নেন।সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে ঠাকুরগাঁও-৩ আসন থেকে বিএনপি প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত জাহিদুর রহমান শপথ নেন। এ কারণে দল তাকে বহিষ্কারও করেছে। দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে এভাবে শপথ নেয়ায় বিএনপির হাইকমান্ডসহ সব পর্যায়ের নেতাকর্মীরা বিব্রত। এরপর যাতে আর কেউ শপথ না নেন সে জন্য সবাই ছিল তৎপর। অবশেষে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়া সবাই শপথ নিলেন।

Advertisement