ঢাকায় গোপন বৈঠক থেকে বিএনপির ১৭ নেতা আটক: পুলিশ

0
110

নিউজ ডেস্কঃ মহান মে দিবসে শ্রমিক সমাবেশের অনুমতি না পেলে ওই দিন রাজধানীতে র‌্যালি করবে বলে জানিয়েছে বিএনপির অঙ্গ সংগঠন শ্রমিক দল। শ্রমিক দলের প্রচার সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

মহান মে দিবসে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের সিদ্ধান্ত নেয় শ্রমিক দল। এজন্য তারা গত ১৬ এপ্রিল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপির) কাছে অনুমতি চায়। তবে আজ রবিবার (২৯ এপ্রিল) পর্যন্ত তারা অনুমতি পায়নি। আর অনুমতি পাওয়ার কোনও সম্ভাবনাও দেখছেন না শ্রমিক দলের নেতারা। এই অনিশ্চয়তায় তারা বিএনপির নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে থেকে র‌্যালি করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

শ্রমিক দল সূত্রে জানা গেছে, লিখিত আবেদনের পাশাপাশি সমাবেশের অনুমতির জন্য সংগঠনটির নেতারা ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করছেন। সর্বশেষ আজ রবিবার ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে তারা দেখা করতে যান। তবে তার সাক্ষাৎ পাননি।

এ ব্যাপারে শ্রমিক দলের প্রচার সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ‘গত ১৬ এপ্রিল সমাবেশের অনুমতির জন্য আমরা লিখিত আবেদন করেছি। কিন্তু এখনও সমাবেশের অনুমতি পাইনি; পাবো বলেও মনে হচ্ছে না। তবে সমাবেশে অনুমতি না পেলে ওই দিন র‌্যালি করার প্রস্তুতি রয়েছে আমাদের।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগামীকাল সোমবার ১০টার দিকে আমরা আবারও ডিএমপি কমিশনার সঙ্গে দেখা করবো। যদি সমাবেশের অনুমতি না মেলে, তবে ওই দিন র‌্যালি করার বিষয়টি জানিয়ে আসবো।’

শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইন বলেন, ‘আমরা তো কারও মুক্তির দাবিতে সমাবেশ করছি না। শ্রমিক সংগঠন হিসেবে শ্রমিকদের দাবি-দাওয়া নিয়ে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। কিন্তু এখনও পর্যন্ত অনুমতি পাইনি। আর পাবে বলেও মনে হচ্ছে না। তাই আমরা বিকল্প চিন্তা করছি।’

গত ২২ এপ্রিল এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী দলটির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ৮ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। এর মধ্যে মে দিবসে শ্রমিক দল সমাবেশ করবে বলেও তিনি ঘোষণা দেন।

গত ৮ জানুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্র দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাবন্দি হওয়ার পর থেকে তার মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে চার বার সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছিল দলটি। কিন্তু ডিএমপি থেকে তাদের সমাবশে করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here