কক্সবাজারে জাতিসংঘের নিরাপত্তা প্রতিনিধি দল

0

নিউজ ডেস্কঃ জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি দল শনিবার (২৮ এপ্রিল) বিকাল সাড়ে ৪টায় কক্সবাজার এসে পৌঁছেছে। সরাসরি কুয়েত থেকে আসা একটি চার্টার বিমানে জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাজ্যের স্থায়ী প্রতিনিধিসহ ১০ জন স্থায়ী প্রতিনিধি এবং পাঁচজন উপ স্থায়ী প্রতিনিধি রয়েছেন প্রায় ৩০ জনের এ দলে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব মোহাম্মাদ খোরশেদ আলম বিমানবন্দরে তাদের স্বাগত জানান।এই প্রথমবারের মতো নিরাপত্তা পরিষদের কোনও প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সফর করছে।পেরুর স্থায়ী প্রতিনিধি বর্তমানে নিরাপত্তা পরিষদের সভাপতি। তিনি এই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

সন্ধ্যায় সরকারের পক্ষ থেকে তাদের তিনটি বিষয়ের ওপর প্রেজেন্টেশন দেওয়া হবে। এর প্রথমটি থাকবে ভ’-রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট, দ্বিতীয়টি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন এবং তৃতীয়টি প্রথাগত ও অপ্রথাগত নিরাপত্তা ঝুঁকি বিষয়ে।
রবিবার (২৯ এপ্রিল) সকালে প্রতিনিধিদল জিরো লাইনে অবস্থিত রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে যাবে।এরপর বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম শরণার্থী শিবির কুতুপালং পরিদর্শন করবেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।রবিবার বিকালে তারা ঢাকা যাবেন। পরদিন সোমবার (৩০ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবে প্রতিনিধিদল।
ওইদিনই তারা মিয়ানমারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন।সেখানে মিয়ানমার সরকারের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা ছাড়াও তারা রাখাইনে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা হেলিকপ্টারে পরিদর্শন করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।
গত শতকের ৬০-এর দশকে মিয়ানমারে সামরিক জান্তা ক্ষমতা দখল করলে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন ও বৈষম্যের খড়্গ নেমে আসে। এর জেরে ১৯৭৮ সালে প্রথম রোহিঙ্গা ঢল আসে বাংলাদেশে।এরপর ১৯৯২ সালে আবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে। ২০১২ সালে জাতিগত দাঙ্গার অজুহাতে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে গেলে হাজার হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য হয়।২০১৬ সালে রাখাইনে পুলিশ চৌকির আক্রমণের অজুহাতে আবার নতুন করে নির্যাতন শুরু হয়। একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে ২০১৭ সালে। গত ২৫ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। এর আগে থেকে প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গা বাংরাদেশে বাস করছিল।

Share.

Leave A Reply