আযান না দেয়ায় নবজাতক সন্তানকে আছাড় দিয়ে হত্যা!

0

আযান না দেয়ার কারণে নবজাতক শিশু সন্তানকে মাটিতে আছাড় দিয়ে হত্যা করেছে এক পাষণ্ড। সাজু মিয়াকে (৩১) আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা। পরে তাকে আদালতের নির্দেশে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলা শহরের ঘোড়াঘাট সড়কে অবস্থিত ‘মা’ ক্লিনিক এন্ড নার্সিং হোম নামে ক্লিনিকে এ লোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটেছে।

পুলিশ ও ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ জানায়, রোববার বিকেলে শাহনাজ বেগম সাহেরাকে ক্লিনিকে নিয়ে আসে তার স্বামী সাজু মিয়া ও পরিবারের লোকজন। রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ছেলে সন্তানের জন্ম দেয় সাহেরা।

সন্তান জন্মের পর সাহেরা অচেতন থাকায় তার ভাবী কোহিনূর বেগম শিশুটিকে দেখভাল করতে থাকে। রাত সাড়ে ১০ টার দিকে সাজু মিয়া সন্তানকে কোলে নেয়। এসময় সে জানতে চায় সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার সাথে সাথে আযান দেয়া হয়েছে কিনা।

ভাবী কোহিনূর ও পরিবারের লোকজন নীরব থাকে। কিছু বুঝে উঠার আগেই শিশুটিকে উপরে তুলে মেঝেতে আছাড় দেন সাজু মিয়া। এতে সাথে সাথেই ঘটনাস্থলেই নিষ্পাপ শিশুটির মৃত্যু ঘটে।

এঘটনায় কিং কর্তব্যবিমূঢ় ক্লিনিকের লোকজন হাতে-নাতে সাজুকে আটক করে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ সাজু মিয়াকে আটক করে এবং শিশুর লাশ উদ্ধার করে।

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল আলম জানান, শিশু সন্তানকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনায় সাজু মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে।

দুপুরের মধ্যে সাজুকে আদালতে পাঠায় পুলিশ। পরে আদালতের নির্দেশে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামদিয়া ইউনিয়নের তুলট গ্রামের শাহা মিয়ার ডিগ্রি পাস মেয়ে সাহেরা বেগমের (৩৫) সাথে তিনবছর আগে একই উপজেলার শাখাহার ইউপির মোল্লাপাড়া গ্রামের সুলতান সরকারের ছেলে পেশায় রং-মিস্ত্রি কোরআনে হাফেজ সাজু মিয়ার বিয়ে হয়।

 

Share.

Leave A Reply