‘টি ট্রি অয়েলের’ এ ব্যবহারগুলো বদলে দেবে আপনার জীবন!

0

সমগ্র বিশ্বজুড়ে এর ব্যাপক চাহিদা, বাংলাদেশেও হাঁটি হাঁটি পা পা করে বেশ কয়েক বছরের মধ্যেই আপন অবস্থান শক্ত করে নিয়েছে এ প্রোডাক্টটি। বলা হচ্ছে, টি ট্রি অয়েলের কথা।এটি মূলত আস্ট্রেলিয়ান টি ট্রি (মেলালেংকা অল্টারনিফোলিয়া) পাতা থেকে নিঃসৃত এক বিশেষ তেল। পাশ্চাত্য সমাজে কাঁটাছেড়া থেকে শুরু করে ত্বকের যেকোন সমস্যা সমাধানে এ তেল অনেকখনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এতোটাই কাজের এটি যে সকলে টি ট্রি অয়েলকে ‘বোতলের ভেতর মেডিসিন ক্যাবিনেট’ বলে আখ্যায়িত করে থাকেন। বড় বড় সুপার শপ থেকে শুরু করে মেডিকেল স্টোরেও আজকাল পাওয়া যায় টি ট্রি অয়েল। দামটা এখনো বেশ চড়ার দিকে হলেও এর বহুমুখী প্রতিভার কথা জেনে সচেতন মানুষেরা আপন করে নিয়েছেন এটিকে।

আপনি জানেন তো টি ট্রি অয়েলের বহুল সুনামের কথা কিংবা এর বহুমুখী ব্যবহারের কথা? না জেনে থাকলে কোন সমস্যা নেই। বিস্তারিত জানতে পারবেন এ ফিচার থেকেই-

দাঁতের যত্নে

টি ট্রি অয়েল এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদানের কারণে বেশ কয়েকটি টুথপেস্ট ও মাউথওয়াশে এটি ব্যবহার করা হয়। আপনি যদি নিজের টুথপেস্ট নিজেই ঘরে বানাতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তাহলে একটু টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিতে পারেন। তবে খেয়াল করবেন কোনভাবেই যেন না গিলে ফেলেন, সেটি বিষাক্ত হতে পারে।

পায়ের নখের ফাংগাস সারাতে

পায়ের নখে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। যেমন- রঙের ভিন্নতা, মোটা হয়ে যাওয়া কিংবা নখ ভেঙ্গে যাওয়া। এ সকল সমস্যা টি ট্রি অয়েলের মাধ্যমে রোধ করা যেতে পারে।

ঘর পরিষ্কার করতে
টি ট্রি অয়েলের আরেকটি দারুণ ব্যবহার হলো এটি ঘর পরিষ্কার করতে ব্যবহৃত হতে পারে। এর ভেতর বেশ শক্তিশালী অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান আছে যেগুলো ব্যাকটেরিয়া নিধনে সাহায্য করে। টি ট্রি অয়েল ক্লেনজার তৈরি করতে এর সঙ্গে পানি ও ভিনেগার মেশান। অতঃপর এ মিশ্রণের সাহায্যে রান্নাঘরের কাউন্টার টপ, গোসলখানা, টয়লেট ও সিংক পরিষ্কার করতে পারবেন।

মুখের ব্রণ সারাতে

টি ট্রি অয়েল অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদানে পরিপূর্ণ, সেক্ষেত্রে এটি অ্যাকনে কিংবা ব্রণ দূর করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি অনেকটা বেনজয়েল পারঅক্সাইড এর মতন কার্যকরী। আপনার ত্বক যদি সংবেদনশীল হয়, তবে অবশ্যই পানির সঙ্গে মিশিয়ে নেবেন এবং শুধুমাত্র ব্রণের ওপর লাগাবেন।

শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে
শরীরের দুর্গন্ধ দূর করতে টি ট্রি অয়েলের জুড়ি নেই। ঘামের কারণে শরীরে যে দুর্গন্ধ হয় সেটির ব্যাকটেরিয়া এ তেল সহজেই মেরে ফেলে। আপনি বেকিং সোডা ও নারকেল তেলের সঙ্গে এটি মিশিয়ে ঘরে বসেই ডিওডোরেন্ট বানিয়ে ফেলতে পারেন। এটি নিরাপদ এবং কার্যকরী।

উকুন প্রতিরোধে

ইতালিয়ান একটি গবেষণায় পাওয়া গিয়েছে যে টি ট্রি অয়েল ব্যবহারে মাথার উকুন শতভাগ দূর করা যায় এবং একনাগাড়ে পাঁচ দিন ব্যবহারে উকুনের ডিম থেকেও নিস্তার পাওয়া যায়!

ইউকে ব্র্যান্ড এর TEA TREE OIL কিনতে  আপনি বেছে নিতে পারেন DO BAZAR.

Link : https://www.facebook.com/dobazaronline/

সূত্র: Natural Living Ideas, Healthy Women, Dr. Axe

Share.

Leave A Reply