‘খাতওয়ারি দুর্নীতিবাজ ধরবে দুদক’

0

নিউজ ডেস্কঃ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, সমাজে দুর্নীতিবাজ শকুনের উৎপত্তি ঘটেছে। এসব শকুনদের উৎখাত করতে চাই। এই দুর্নীতিবাজরা তাদের ঔদ্ধত্যের সীমা ছাড়িয়ে গেছে। সময় হয়েছে সবাই এক হয়ে এই ঔদ্ধত্যের বিষদাঁত ভেঙে দেওয়ার।

শনিবার রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে আন্তজার্তিক দুর্নীতিবিরোধী দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।দুদক চেয়ারম্যান বলেন, এরা ব্যাংক লুট করছে, সরকারি কাজে ঘুষ নিচ্ছে, ব্যবসা বাণিজ্যে অনৈতিক কাজ করছে, শিক্ষা ব্যবস্থায় অনৈতিক কাজ করছে, প্রশ্নপত্র ফাঁস থেকে শুরু করে শ্রেণিকক্ষ পর্যন্ত সমস্যা তৈরি করছে। এরা ঔদ্ধত্যের সীমা ছাড়িয়ে গেছে।

তিনি বলেন, ভবিষৎ প্রজন্মের জন্য সবাই এক হয়ে দুর্নীতিবাজদের এই ঔদ্ধত্যের সমুচিত জবাব দিতে হবে। এক্ষেত্রে দুদকের একার পক্ষে জবাব দেওয়া সম্ভব না। দুদক কেবল অনুঘটক হিসেবে কাজ করতে পারে। দলমত নির্বিশেষে সকল মানুষের রুখে দাঁড়ানো ছাড়া এই দুর্নীতিবাজদের ঔদ্ধত্য রুখা যাবে না। আসুন আমরা সবাই একটি কথাই বলি দুর্নীতিবাজদের আমরা ছাড়ব না।দুদক চেয়ারম্যান বলেন, আগামী প্রজন্মের জন্য কোনো ক্রমে এই দুর্নীতিবাজদের অপকর্ম সহ্য করতে চাই না, সহ্য করব না। এই হোক আমাদের আজকের শপথ।হজরত ওমর (রা.) এর একটি উদ্ধৃতি দিয়ে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, ওমর (রা.) বলেছিলেন তোমরা রাতে এমন কাজ কর না যাতে করে দিনের বেলায় মুখ লুকাতে হয়। আবার দিনে এমন কাজ কর না যাতে রাতে অন্ধকারে মুখ লুকাতে হয়।তিনি বলেন, দুর্নীতিবাজদের বোঝা উচিত তারা যে সম্পদ দুর্নীতি করে অর্জন করেন তা তারা ভোগ করতে পারেন না। এই সম্পদ তারা শরীর স্বাস্থ্য কিংবা বয়সের জন্য ভোগ করতে পারেন না। তারা মূলত দুর্নীতি করেন টাকা ও ক্ষমতার নেশার কারণে। এই ধরনের নেশা আমরা বন্ধ করতে চাই।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, এই দুই নেশার কারণে আমাদের আগামী প্রজন্মের ভবিষৎ অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিতে পারি না। ভবিষৎ প্রজন্মের জন্য আমরা শপথ নিতে চাই, তোমাদের জন্য দুর্নীতিমুক্ত একটা পরিবেশ মৃত্যুর আগে রেখে যেতে চাই। তার জন্য সকলের সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন। যাতে করে সরকারি-বেসরকারি ও শিক্ষা ব্যবস্থাপনাসহ রাজনীতি ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে দুর্নীতির বিন্দুমাত্র গন্ধ না থাকে। এই স্বপ্ন আমরা সকলে দেখতে চাই এবং এ স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্যে প্রয়োজন আমাদের জাতীয় ঐক্য।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষাবিদ জাফর ইকবাল বলেন, ভবিষৎ প্রজন্মের জন্য এমন একটি সুখী-সমৃদ্ধ দেশ গড় যাতে করে দুদকের মতো প্রতিষ্ঠান দরকার না হয়।তরুণ প্রজন্মের উদ্দেশে তিনি বলেন, তোমরা বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাও। পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠিত কর। তাহলে যাদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে এদেশ সৃষ্টি হয়েছে তাদের আত্মা শান্তি পাবে।অনুষ্ঠানে দুদক কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, দুদক সচিব ড. শামসুল আরেফিনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Share.

Leave A Reply