১০ পাদরিকে হত্যার হুমকি

0

indexইউকেবিডি ডেস্ক : রংপুর ও দিনাজপুরে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের চার্চের ফাদারসহ কর্মকর্তাদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়েছে। গতকাল রংপুরের চার্চদের ডাকযোগে ও দিনাজপুরের চার্চদের মোবাইল ফোনের এসএমএসের মাধ্যমে এ হুমকি দেয়া হয়।

খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের রংপুরের ১০ ব্যাপ্টিস্ট চার্চ সংগঠনের ফাদারসহ কর্মকর্তাদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চিঠি দেয়ায় প্রশাসনসহ সর্বত্র ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। ডাকযোগে এ চিঠি পেয়ে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের প্রধান ও কর্মকর্তাগণ আতঙ্কিত হয়ে উঠেন। তাৎক্ষণিকভাবে তারা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করে কোতোয়ালি থানায় জিডি করেছেন। অভিযোগের খবর পেয়ে প্রশাসনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তারা নড়েচরে বসেছেন। কোথা থেকে চিঠি এলো কারা এ চিঠি লিখেছে এ নিয়ে শুরু হয়েছে তদন্ত। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে মাঠে নেমেছে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। এ ব্যাপারে রংপুরের ধাপ এলাকায় অবস্থিত খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ব্যাপ্টিস্ট চার্চসংঘের ফাদার মি. বার্নবাস বলেন, চিঠির মাধ্যমে প্রাণনাশের হুমকিতে হতভম্ব হয়ে পড়েছি। আমরা সমাজের মানুষের জন্য কাজ করতে এসেছি। এখানে এসে প্রাণনাশের হুমকিতে উদ্বেগ প্রকাশ করছি।  বিষয়টি আমরা আমাদের সংগঠনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছি। স্থানীয় প্রশাসনকেও অবহিত করেছি।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুর জেলা সদরের উত্তরপাড়ার গণেশ রায়ের পুত্র অতুল রায় নামে প্রেরিত সরকারি ডাকযোগে হাতে লেখা একটি চিঠি রংপুরের ধাপ এলাকায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পাশে অবস্থিত খ্রিষ্টানদের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ব্যাপ্টিস্ট চার্জসংঘের ফাদার মি. বার্নবাস-এর নামে পাঠানো হয়। গতকাল সকালে চিঠিটি হাতে পান বার্নবাস। চিঠিতে লেখা রয়েছে খ্রিষ্টানের নেতাগণ তোমরা যা খাবার ইচ্ছা করে তা খেয়ে নাও, এই মুহূর্ত থেকে জেনে রাখবা আগামী যে কোন দিন, সময় বা মুহূর্তে তোমাদের বিদায় দেবো। এরপর ওই চিঠিতে অন্যান্য খ্রিষ্টান সংগঠনের নাম উল্লেখ করেছে। এসব সংগঠন হলো- রংপুর সদরের রবার্নবাস ব্যাপ্টিস্ট চার্চ সংঘ,  গিয়াস এইচআর ডি পি, যনতাজ ইয়োয়ীই চার্চ, মানিক এজি চার্চ, মাইকেল কাথলিক চার্চ, লাবলু ফেইথ বাইবেল চার্চ, পীরগাছা, জগদীশ চার্চ অব গড কাউনিয়া, ওয়ার্ল্ড ভিশন পরিচালক, রংপুর সদর, কেনিয়া পরিচালক, পীরগাছা এবং আজিজুল/সবুর/সাতদরগা, পীরগাছা। এছাড়া চিঠিতে আরও উল্লেখ করা হয় এবার আমাদের পরিকল্পনা বাংলাদেশে যারা খ্রিষ্টান ধর্ম প্রচার করে তাদের সকলকে এক এক করে বিদায় দেয়া। আমাদের দেশে শুধু মুসলিম আইন দ্বারা দেশ পরিচালিত হবে। বাংলাদেশে মুসলমান আছে কি-না এবার  সরকার টের পাবে।
অপরদিকে, চিঠির প্রেরক ও হুমকিদাতা হিন্দু সম্প্রদায় হলেও মুসলিম আইন বিষয়ক কথা বলায় প্রশাসন এটিকে কৌশল মনে করে বলেন, প্রকৃত হুমকিদাতা নিজের নাম গোপন করে এটি ছদ্ম নাম ব্যবহার করে থাকতে পারে।
পুলিশ সুপার আবদুল রাজ্জাক বলেন, এটি একটি উড়ো চিঠি। এনিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ দেখছি না। তবুও বিষয়টি আমরা আমলে নিয়ে গুরুত্ব্বের সঙ্গে তদন্ত করে দেখছি।
‘আইএস-এর নির্দেশে আপনাকে ২০শে ডিসেম্বরের মধ্যে হত্যা করা হবে, তা নিজপাড়ায় থাকেন কী দিনাজপুরে। যা খুশি  খেয়ে নিন।’ জেলার বীরগঞ্জে ক্যাথলিক চার্চের এক ফাদারের মোবাইল ফোনে এসএসএম এর মাধ্যমে এভাবে একটি ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়ে হত্যার হুমকি দিয়েছে কে বা কারা। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ক্যাথলিক চার্চের ফাদার কার্লসকে বুধবার এ হত্যার হুমকি দিয়ে এ ক্ষুদেবার্তা দেয়া হয়। তারা রাতে ব্যাপারটি বীরগঞ্জ থানার ওসিকে জানান।
বীরগঞ্জ থানার ওসি জাহাঙ্গীর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর  পেয়ে তিনি চার্চে গিয়ে ওই ফাদারের সঙ্গে দেখা করেছেন এবং তাদের নির্ভয়ে থাকতে বলেছেন। তার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

এটা আইএস-এর পক্ষ থেকে দিনাজপুরের এক ক্যাথলিক চার্চের ফাদারকে হুমকি দিয়ে লেখা একটি এসএমএস বলে দাবি করা হলেও স্থানীয় প্রশাসন এ বিষয়ে এখনও নিশ্চিত করে কিছু বলছেন না। তারা বলছেন, তদন্ত চলছে। সময় সাপেক্ষে তা বলা যাবে। বুধবার, সন্ধ্যা ৭টা ৫৫ মিনিটে পাঠানো বাংলায় লেখা মেসেজে বলা হয়েছে, ‘ফাদার কার্লোস আইএস’র পক্ষ থেকে সালাম নিবেন দলের নির্দেশে আপনাকে ২০শে ডিসেম্বরের মধ্যে হত্যা করা হবে।’
দিনাজপুর শহর থেকে উত্তরে ৩৫ কিলোমিটার দূরে বীরগঞ্জ উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের চকবেনারসি গ্রামে এই ক্যাথলিক চার্চটির অবস্থান।

Share.

Leave A Reply

twenty + 1 =