প্রযুক্তি খাতে বিশ্বসেরা ২৫টি ব্র্যান্ড

0

প্রকাশিত হয়েছে ব্র্যান্ড ফিন্যান্সের ‘ওয়ার্ল্ডস টপ ৫০০ ব্র্যান্ডস’ এর তালিকা। ব্রিটিশ ভিত্তিক এই মূল্যায়ন ও কৌশল বিষয়ক কনসালটেন্সি ফার্ম বিশ্বের বড় বড় ব্র্যান্ড কম্পানির তালিকা প্রকাশ করে।

বাজারে ব্র্যান্ডের মূল্যমান এবং প্রভাববিস্তারের দিকগুলো বিশ্লেষণ করে এ তালিকা নির্ধারিত হয়। এরাই সেরা এবং মূল্যবান প্রযুক্তি ব্র্যান্ড। এ বছরের তেমনই সেরা ব্র্যান্ডগুলোর নাম জানাচ্ছে তারা। টানা ৫ বার শীর্ষে থাকা অ্যাপলকে সরিয়ে এবার সেই স্থান দখল করেছে গুগল। এখানে বর্তমান বিশ্বের সেরা প্রযুক্তি ব্র্যান্ডগুলোকে চিনে নিন।
১. গুগল টেকনলজি রয়েছে শীর্ষে। ২০১৭ সালে এই আমেরিকান কম্পানির ব্র্যান্ড মূল্যমান ১ লাখ ৯ হাজার ৪৭০ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে তা বেড়েছে ২৪ শতাংশ।

২. দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অ্যাপল। এ বছর তাদের ব্র্যান্ডের মূল্যমান ১ লাখ ৭ হাজার ১৪১ মিলিয়ন ডলার। গত বছর থেকে এ বছর এগিয়েছে ২৭ শতাংশ।

৩. এ বছর ১ লাখ ৬ হাজার ৩৯৬ মিলিয়ন ডলারের ব্র্যান্ড মূল্যমান নিয়ে তৃতীয়তে রয়েছে আমাজন। গত বছরের চেয়ে ৫৩ শতাংশ এগিয়েছে তারা।

৪. এটিঅ্যান্ডটি টেলিকমের এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৮৭ হাজার ১৬ মিলিয়ন ডলার। তারা এবার এগিয়েছে ৪৫ শতাংশ।

৫. এর পর রয়েছে মাইক্রোসফট টেকনলজি। এ বছর ব্র্যান্ডের মূল্যমান ৭৬ হাজার ২৬৫ মিলিয়ন ডলার। এ বছর বেড়েছে ১৩ শতাংশ।

৬. স্যামসাংয়ের এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৬৬ হাজার ২১৯ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে বেড়েছে ১৩ শতাংশ।

৭. এবার ভেরিজন টেলিকম। এ বছর তাদের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৬৫ হাজার ৮৭৫ মিলিয়ন ডলার। তারা এ বছর এগিয়েছে ৪ শতাংশ।

৮. ফেসবুকের কথা তারপর আসে। ২০১৭ সালে তাদের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৬১ হাজার ৯৯৮ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে তা দারুণ বেড়েছে, ৮২ শতাংশ।

৯. ওপরের সব আমেরিকান কম্পানির পর চীনের একটি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড স্থান করে নিয়েছে। চায়না মোবাইল টেলিকমের ব্র্যান্ড মূল্যমান এ বছর ৪৬ হাজার ৭৩৪ মিলিয়ন ডলার। চীনের এই কম্পানি গত বছরের চেয়ে এগিয়েছে ৬ শতাংশ।

১০. জাপানের এনটিটি গ্রুপ রয়েছে এর পর। এ বছর তাদের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৪০ হাজার ৫৪২ মিলিয়ন ডলার। এ বছর বেড়েছে ২৮ শতাংশ।

১১. জার্মানির ডাচ টেলিকমের এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৩৬ হাজার ৪৩৩ মিলিয়ন ডলার। এ বছর বেড়েছে ১০ শতাংশ।

১২. আমেরিকান আইবিএম টেকনলজির এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ৩৬ হাজার ১১২ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে তা বেড়েছে ১৪ শতাংশ।

১৩. এ বছর আমেরিকার আলিবাবা টেকনলজির ব্র্যান্ড মূল্যমান দাঁড়িয়েছে ৩৪ হাজার ৮৫৯ মিলিয়ন ডলারে। প্রায় শতভাগ বেড়েছে তাদের মূল্যমান, ৯৪ শতাংশ।

১৪. আমেরিকার জিফিনিটি টেলিকমস আসছে এর পর। এ বছরে তাদের ব্র্যান্ড মূল্যমান ২৬ হাজার ১৮০ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে বেড়েছে ৮ শতাংশ।

১৫. ওরাকল টেকনলজি মার্কিন কম্পানি। এ বছর তাদের ব্র্যান্ড মূল্যমান ২৫ হাজার ৮৭৮ মিলিয়ন ডলার। বৃদ্ধি পেয়েছে ১৭ শতাংশ।

১৬. চীনের হুয়াউই রয়েছে এ তালিকায়। চলতি বছর তাদের ব্র্যান্ড মূল্যামান ২৫ হাজার ২৩০ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে তা বেড়েছে ২৮ শতাংশ।

১৭. টেনসেন্ট টেকনলজি এরপর। চীনের এই ব্র্যান্ডের মূল্যমান এ বছর ২২ হাজার ২৮৭ মিলিয়ন ডলার। একলাফে ১২৪ শতাংশ বেড়েছে তাদের মূল্য।

১৮. ব্রিটেনের ভোডাফোন টেলিকমসের এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ২১ হাজার ১৮৩ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে বেড়েছে ২২ শতাংশ।

১৯. ফ্রান্সের ওরেঞ্জ টেলিকমসের এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ২১ হাজার ৫২৬ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে বেড়েছে ১৩ শতাংশ।

২০. মার্কিন ব্র্যান্ড সিসকো টেকনলজির এ বছরের মূল্যমান ২০ হাজার ৭৩৪ মিলিয়ন ডলার। তারা এগিয়েছে ৮ শতাংশ।

২১. আমেরিকান কম্পানি ইন্টেল টেকনলজির এ বছরের মূল্যমান ২০ হাজার ৩৬৯ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে বেড়েছে ১১ শতাংশ।

২২. আমেরিকার ডেল টেকনলজির চলতি বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ১৮ হাজার ১৮৬ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে বেড়েছে ৮৬ শতাংশ।

২৩. চীনের চায়না টেলিকমের এ বছর ব্র্যান্ড মূল্যমান দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৫৯৯ ডলারে। গত বছরের চেয়ে তা ২৯ শতাংশ বেশি।

২৪. অ্যাসেঞ্চার টেকনলজির এ বছরের ব্র্যান্ড মূল্যমান ১৭ হাজার ৪৬৪ মিলিয়ন ডলার। মার্কিন ব্র্যান্ডটির মূল্য বেড়েছে ৩৮ শতাংশ।

২৫. জাপানের এইউ টেলিকম রয়েছে শীর্ষ পঁচিশের শেষে। এ বছর তাদের ব্র্যান্ড মূল্যমান ১৬ হাজার ৯১৯ মিলিয়ন ডলার। গত বছরের চেয়ে তা বেড়েছে ৩২ শতাংশ। সূত্র: গেজেট স্নো

Share.

Leave A Reply

4 + eleven =