ধর্ষণ মামলার আসামিদের ধরতে চলছে অভিযান

0

রাজধানীর বনানীতে দ্য রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের শিকার দুই তরুণীর দায়ের করা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারে সম্ভাব্য সব জায়গায় অভিযান চলছে। গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ) মো. মাসুদুর রহমান।

বুধবার গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের জন্য সচেষ্ট রয়েছে প্রশাসন। তাছাড়া তারা যাতে দেশ ছেড়ে পালাতে না পারে সে ব্যাপারেও সজাগ রয়েছে পুলিশ। আশা করছি, শিগগিরই তাদের গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হব।

এর আগে মঙ্গলবার আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদকে (২৬) ধরতে তাদের গুলশানের বাসায় অভিযান চালায় পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী এ অভিযান চালানো হয়। কিন্তু সাফাতকে বাসায় পাওয়া যায়নি।

অভিযান প্রসঙ্গে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থানার ওসি (তদন্ত) আবদুল মতিন বলেন, সাফাতকে গ্রেপ্তারে গুলশান-২ এর ৬২ নম্বর রোডের ২ নম্বর বাসায় অভিযান চালানো হয়। শুধু সাফাত নয়, প্রত্যেকের বাসায়ই অভিযান চালানো হচ্ছে।

এদিকে সন্ধ্যায় বনানী থানা থেকে মামলা ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে হস্তান্তর করেছে বনানী থানা পুলিশ।

দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার পাঁচ আসামির একজন সাদমান সাকিফ (২৪) রেগনাম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. হোসাইন জনির ছেলে। সাকিফ নিজেও ওই প্রতিষ্ঠানের ডিরেক্টরদের মধ্যে একজন।

প্রসঙ্গত, গত ২৮ মার্চ দ্য রেইন ট্রি হোটেলে জন্মদিনের পার্টিতে আমন্ত্রণ করে ওই দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। গত শনিবার রাতে ভুক্তভোগীদের একজন বনানী থানায় আসামিদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করে। সাফাত ও সাদমান ছাড়াও ওই মামলার অন্য আসামিরা হলেন- নাঈম আশরাফ (৩০), সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল (২৬) ও অজ্ঞাতনামা দেহরক্ষী।

Share.

Leave A Reply

8 − seven =